1. abkiller40@gmail.com : admin : Abir Ahmed
  2. ferozahmeed10@gmail.com : moderator1818 :
শিক্ষাবন্ধু জনাব মির্জা আজম। - Barta24TV.com
বিকাল ৫:২২, সোমবার, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

শিক্ষাবন্ধু জনাব মির্জা আজম।

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, জুলাই ২৪, ২০২২
  • 308 Time View

নিউজ ডেক্সঃ

মির্জা আজম এমপি ১৯৯১ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত ৪৩ টি নতুন স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেছেন।

তাঁর প্রতিষ্ঠিত মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ২৬টি এবং কলেজ সংখ্যা ২২ টি।
এর মধ্যে ৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও দুইটি কলেজ সরকারিকরণ করা হয়েছে।

২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসার পর গত ১৩ বছরে তিনি নিজ জেলায় তাঁর উদ্যোগে সরকার কর্তৃক বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান সংখ্যা ১২ টি।

১. বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ১টি।
২.প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় ১টি।
৩.হাইটেক পার্ক,
৪.মেডিকেল কলেজ
৫.টেক্সটাইল কলেজ
৬.টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট
৭.পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট।
৮. মেডিকেল টেকনোলজি
৯. নার্সিং ইনস্টিটিউট
১০.কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি)
১১. ফ্যাশন ডিজাইন ইনস্টিটিউট।
১২.পল্লি উন্নয়ন একাডেমি-সহ অর্ধশতাধিক গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। যে কারণে এক সময়ের অবহেলিত ও পশ্চাৎপদ জামালপুর এখন সমৃদ্ধ জামালপুরে রূপান্তরিত হয়েছে।

মির্জা আজমের দূরদর্শী নেতৃত্বের কারণে জামালপুরের মানুষ এখন আর শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত নন।শিক্ষার আলোয় আলোকিত হয়ে এই জনপদের অসংখ্য মানুষ বর্তমানে দেশে ও বিদেশে কর্মরত রয়েছেন।

প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন,
প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা – ২০৭টি (১৯৯১-২০১৩ সাল পর্যন্ত)
অধ্যয়নরত ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা প্রায় ৫০ হাজারের অধিক।
শিক্ষক সংখ্যা – ১০৩৫ জন ও কর্মচারী সংখ্যা ২০৭ জন।
মোট শিক্ষক ও কর্মচারী সংখ্যা ১২৪২ জন।

৩ ধাপে ২০৭ টি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় জমি দান, বেশীরভাগ প্রতিষ্ঠানে নগদ অর্থ প্রদান- সহ প্রত্যেকটি বিদ্যালয় জাতীয়করণ করার ক্ষেত্রে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট দফতরের সাথে নিবিড় যোগাযোগ, সুপারিশ, আন্তরিক সহযোগিতা ও ঐকান্তিক প্রচেষ্টার মাধ্যমে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছেন।।

অধ্যয়নরত ও পাসকৃত শিক্ষার্থীদের বিবরণ:

মির্জা আজম এমপির প্রতিষ্ঠিত মাধ্যমিক বিদ্যালয়-কলেজ ,মাদ্রাসা ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায় পর্যন্ত ২০২১ সালের তথ্য অনুযায়ী অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২২,৭,২৫ জন।।

জেএসসি ও সমমান হতে স্নাতক (সম্মান) পর্যন্ত পাসকৃত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৫০,৫০১ জন।
জেএসসি ও সমমান ১৩,৮৪০ জন,এসএসসি ও সমমান ১২,৮৮০ জন,এইচএসসি ও সমমান ১৮,৬৩১ জন,কোরআনের হাফেজ ১,০০০ জন, স্নাতক (পাস) ও সমমান এবং স্নাতক (সম্মান) পাসকৃত ছাত্র/ছাত্রীর সংখ্যা ৪,১৫০ জন।( আগামী দিনে এই সংখ্যা বহুগুণে বৃদ্ধি পাবে,বিশেষ করে উচ্চ শিক্ষায়) কর্মরত শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীর সংখ্যা ১,২,৯২ জন।পর্যায়ক্রমে হাজার হাজার শিক্ষিত ছেলে-মেয়েদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

মির্জা আজম এমপির দানকৃত জমির পরিমাণ :

১৯৯১ হতে ২০২১ সাল পর্যন্ত মির্জা আজম এমপির দানকৃত প্রায় দেড়শ একর জমি-সহ তাঁর প্রতিষ্ঠিত অর্ধশত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মোট জমির পরিমাণ ৭৫৫.৪৫ একর। যার বর্তমান বাজার মূল্য দেড় হাজার কোটি টাকার ওপরে। এবং মির্জা আজমের দানকৃত জমির মূল্য প্রায় ৫শ কোটি টাকা।

তাঁর আন্তরিক সহযোগিতায় শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বহুতল একাডেমিক ভবন নির্মাণের পাশাপাশি দুই শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠায় সরাসরি অংশগ্রহণের মাধ্যমে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী, পাসকৃত ছাত্রী/ছাত্রী ও কর্মরত শিক্ষক,কর্মকর্তা ও কর্মচারীর সংখ্যাও তিন গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

মির্জা আজম এমপি শুধু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা নয়, প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার মানোন্নয়নে তাঁর ভাবনা,প্রচেষ্টা ও সার্বিক তদারকি তাঁকে আর দশজন জনপ্রতিনিধি থেকে আলাদা করে দিয়েছে। নানামুখী অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলে শিক্ষাকে তিনি জেলার মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের প্রধান নিয়ামক হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছেন। ক্ষুদ্র পরিসরে তাঁকে পুরোপুরি তুলে ধরা সম্ভব নয় ” শিক্ষাবন্ধু মির্জা আজম ” বইটি সেই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টার অংশ মাত্র।

সারাদেশে যখন বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় এগিয়ে চলছে সমান্তরালে,নদী ভাঙ্গন ও দারিদ্রতাকে পিছনে ফেলে মির্জা আজম এমপি তাঁর প্রিয় জন্মস্থান জামালপুরকে সমৃদ্ধ জামালপুরে রূপান্তর করেছেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একদিকে সংগঠন অপর দিকে উন্নয়ন কর্মযজ্ঞ চালাচ্ছেন সমানতালে।

প্রতিষ্ঠানের নামকরণ:

তাঁর ৩২ বছরের সাংসদ জীবনে নিজ জেলায় শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে আলোকবর্তিকা হাতে অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এবং সেই প্রতিষ্ঠান গুলি জাতির পিতা ও তাঁর পরিবার, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও দেশবরেণ্য স্থানীয় ব্যাক্তিবর্গের নামানুসারে নামকরণের মাধ্যমে এক অনন্য দৃষ্টান্ত ও ভালোবাসার বিরল নজির স্থাপন করেছেন।

শিক্ষা ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অর্জন নিয়ে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন করছে বাংলাদেশ। মির্জা আজম এমপি বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে শিক্ষা বিপ্লবের মাধ্যমে শিক্ষা উৎসব পালন করছেন জামালপুরে।

মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে থাকা মির্জা আজম এমপির প্রতিষ্ঠিত অর্ধশতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত বিবরণ, অবকাঠামো উন্নয়ন, শিক্ষা ক্ষেত্রে তাঁর ভূমিকা ও শিক্ষা ভাবনা তুলে ধরার ক্ষুদ্র প্রয়াসে জনাব জাকিরুল ইসলামের শিক্ষাবন্ধু মির্জা আজম ” এই বই খানা সকলের সংগ্রহে রাখা উচিৎ।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category