1. abkiller40@gmail.com : admin : Abir Ahmed
  2. ferozahmeed10@gmail.com : moderator1818 :
ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পার্কে সাংবাদিক লাঞ্ছিত হওয়ার অভিযোগ, - Barta24TV.com
দুপুর ১২:১৮, বৃহস্পতিবার, ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পার্কে সাংবাদিক লাঞ্ছিত হওয়ার অভিযোগ,

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, জুলাই ১২, ২০২২
  • 310 Time View

মোঃসাইফুল ইসলাম ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি;
১২ জুলাই ২০২২,

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পার্ক, সাংবাদিক লাঞ্ছিত হওয়ার অভিযোগ ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার চরভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রবেশের জন্য প্রতিজনের কাছ থেকে ২০ টাকা মূল্যের টিকিট বিক্রির অভিযোগ উঠেছে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এরফান আলীর বিরুদ্ধে। এছাড়া সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে প্রধান শিক্ষক স্থানীয় এক সংবাদকর্মীকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগও রয়েছে।

টিকিট ব্যবস্থার কারণ জানতে চাইলে বিক্রেতা আনসার সদস্য দর্শন বলেন, চরভিটার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এরফান আলী আমাকে টিকিট বিক্রি করতে বলেছেন।
জানা গেছে, চরভিটা বিদ্যালয়ের মাঠ প্রাঙ্গণটি বেশ দৃষ্টিনন্দন ভাবে সাজানো। পার্কের মতো সৌন্দর্যের কারণে আশপাশের মানুষ সেখানে ঘুরতে আসেন। উপজেলায় তেমন বিনোদনের ব্যবস্থা না থাকায় ঈদ বা উৎসবের দিন প্রচুর মানুষ চরভিটা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভিড় করে। এখানে এই সুযোগটাই কাজে লাগিয়ে অর্থ আয়ের চিন্তা থেকে প্রধান শিক্ষক টিকিটের ব্যবস্থা করেছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।
লাঞ্ছিত হওয়া স্থানীয় সেই সংবাদকর্মী জানান, সোমবার (১১ জুলাই) বিকাল ৫টায় চরভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মূল ফটকে তালা বন্ধ৷ বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষের পাশেই রয়েছে ছোট্ট একটি ঢোকার পথ৷ টিকিট হাতে বসে আছে এক আনসার সদস্য৷ বিদ্যালয়ে প্রবেশের জন্যে প্রতিজনের কাছ থেকে ২০ টাকা মূল্যে বিক্রি করা হচ্ছে টিকিট৷

টিকিট বিক্রেতা আনসার সদস্য দর্শন বলেন, ঈদের দিন ২০০ টিকিট বিক্রি করেছি৷ গতকালও ২০০ থেকে ২৫০টি টিকিট বিক্রি করেছি৷ চরভিটা বিদ্যালয়ে ঘুরতে আসা দর্শনার্থী আসিকুল ইসলাম আসিক, মরজিনা বলেন, চরভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি দৃষ্টিনন্দন একটি প্রতিষ্ঠান। তাই আমরা এই বিদ্যালয়ে ঘুরতে এসেছি। কিন্তু বিদ্যালয়ের মধ্যে প্রবেশ করতে ২০ টাকা দিয়ে টিকিট ক্রয় করতে হয়েছে, যা দুঃখজনক।

উপজেলা প্রেসক্লাবের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক নূর মোহাম্মদ বলেন, চরভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পার্কের সংবাদ সংগ্রহ করতে সাক্ষাৎকার নেওয়ার একপর্যায়ে সাংবাদিকের ওপর চড়াও হন প্রধান শিক্ষক। পরে পেছন থেকে এরফান আলীর ছেলে ও একজন বহিরাগতসহ ক্যামেরা বন্ধ করতে বাধ্য করে৷ ঝামেলা এড়াতে ক্যামেরাটি বন্ধ করতে বাধ্য হই আমি। এছাড়া আমাকে প্রধান শিক্ষক হুমকি দিয়ে বলেন, ‘আপনার যা খুশি লেখেন। আপনার যা বাহাদুরি করার আছে করেন৷ আপনাকে দেখে নেব৷

হরিপুর উপজেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষা অফিসার এম. এ. এস রবিউল ইসলাম বলেন, সরকারি বিদ্যালয়ের পার্কে প্রবেশের জন্য কোনো প্রকার টিকিট বিক্রি করতে পারবে না৷ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে সাংবাদিকদের বাকবিতণ্ডা হওয়ার বিষয়টি শুনেছি। ওই শিক্ষক সাংবাদিকদের সাথে এমন আচরণ করা ঠিক করেনি। এটি ন্যাক্কারজনক। এর নিন্দা জানাই আমি। এ বিষয়ে ওই স্কুলের শিক্ষক ও সাংবাদিকদের সাথে আগামীকাল ১৩ জুলাই বৈঠক করা হবে।

হরিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বহিৃ শিখা আশা বলেন, যদি ওই স্থানটি সরকারি স্কুলের কিন্তু প্রধান শিক্ষক ব্যক্তি উদ্যোগে সেই পার্কটি গড়ে তুলেছেন। এখানে ঈদের দুই-তিন দিন লোকের সমাগম হয়। সেই ক্ষেত্রে পার্কির উন্নয়নের ক্ষেত্রে ঈদের দুই-তিন দিন জনসাধারণের জন্য ২০ টাকা করে প্রবেশ মূল্য নির্ধারণ করার জন্য প্রধান শিক্ষক আমাকে জানিয়েছেন। তবে স্কুলের প্রধান শিক্ষক কর্তৃক সাংবাদিককে হুমকি বা লাঞ্চিত করার বিষয়টি আমি অবগত না। চরভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এরফান আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বিদ্যালয়ে প্রবেশের ক্ষেত্রে ২০ টাকা নেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, ঈদের দিন ২০ টাকা মূল্যে ২০০ টিকিট বিক্রি হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ঈদের তিন দিন পর্যন্ত বিদ্যালয় পরিদর্শনের ব্যবস্থা রাখার চিন্তাভাবনা আছে। দর্শনার্থীদের চাহিদা বিবেচনায় দিন বাড়ানো হতে পারে

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category